আন্তর্জাতিক ভাবে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত হলেন ঋতব্রত।

 

আন্তর্জাতিক ভাবে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত হলেন ঋতব্রত।

 

Hindus.news

এ বার নেদারল্যান্ডস পুলিশের কাছে জমা পড়ল ঋতব্রতর নামে ধর্ষণের মামলা। কিছুদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় এবং একটি অজানা নামের মেয়ের ছবি ভাইরাল হয়। ছবি-তে ক্যাপশনও দেওয়া হয়েছিল যে নেদারল্যান্ডসে স্ত্রী-র সঙ্গে ছুটি কাটাচ্ছেন ঋতব্রত।

নম্রতা দত্ত নামে এই যুবতীর দাবি, দিল্লির ফ্ল্যাটে ঋতব্রত তাঁর সঙ্গে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মোট উনিশবার যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন। এটা নাকি ছিল তাঁদের প্রথম যৌন সম্পর্ক স্থাপনের দিনের এক টুকরো ছবি। টুইটারে ফলাও করে সে কথাও লিখেছেন নম্রতা নিজেই।

এবার আবার তিনি বিদেশে দায়ের করলেন ধর্ষণের মামলা। আনন্দ বাজার পত্রিকায় প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, যুবতী নেদারল্যান্ডস পুলিশকে জানান, সেই সময় ঋতব্রতকে দেখে তিনি বিশ্বাস করেছিলেন। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ঋতব্রত ফের সহবাস করেন। ২০১৭ সালের নভেম্বরে তাঁর সঙ্গে সম্পর্কের কথা অস্বীকার করে ঋতব্রত অন্যত্র বিয়ে করেন। টাকা দিয়ে তাঁর মুখ বন্ধের চেষ্টা করা হয়। ঋতব্রত বিয়ে করছেন শুনেই তিনি দিল্লি ও বালুরঘাটে অভিযোগ দায়ের করেন। তদন্তে নামে সিআইডি। আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নেন ঋতব্রত। তদন্ত এখনও চলছে।

যুবতির দাবি, “তাঁর অভিযোগ ধামাচাপা দিতেই শাসক দলের সঙ্গে মাখামাখি শুরু করেছেন ঋতব্রত। এখানে বিচার পাওয়া মুশকিল। বাধ্য হয়েই তিনি চলতি বছরের অগস্টে নেদারল্যান্ডস পুলিশের দ্বারস্থ হন। তাঁর অভিযোগ ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের কাছে আসবে খুব তাড়াতাড়ি।” তবে এই বিষয়ে ঋতব্রত বলেন, ‘‘বিচারাধীন বলেই বিষয়ে এখন কিছু বলব না। তবে আগেও বলেছি, গোটাটাই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’’

 

 

Related posts:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *