আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগেই শুরু হবে রাম মন্দির তৈরির কাজ’

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগেই শুরু হবে রাম মন্দির তৈরির কাজ’

 

 Hindus.news

অযোধ্যায় রাম মন্দির গড়া নিয়ে সব সমস্যার সমাধান করে ফেলেছে বিজেপি। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের আগেই রাম মন্দির তৈরির কাজ শুরু হয়ে যাবে।” বক্তা প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ রাম বিলাস বেদান্তি। আর তাঁর এমন মন্তব্যে ফের বিতর্ক তৈরি হল রাজনৈতিক মহলে।

 

দিন কয়েক আগেই রাম মন্দির নিয়ে মন্তব্য করে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন যোগীর মন্ত্রিসভার মন্ত্রী মুকুট বিহারি বর্মা। বলেছিলেন, অযোধ্যায় রাম মন্দির হবেই। কারণ, দেশের বিচার ব্যবস্থা তাঁদের হাতেই। এবার প্রাক্তন বিজেপি সাংসদের কথায় নতুন করে বিপাকে কেন্দ্রের সরকার। মুম্বইয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রাম বিলাস বেদান্তি বলেন, “আসন্ন নির্বাচনের আগে চলতি বছরই অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরির কাজ শুরু হয়ে যাবে। আর মসজিদ নির্মান করা হবে লখনউয়ে। হিন্দু ও মুসলিমরা হাতে হাত মিলিয়ে এ কাজে অংশ নেবে।” তাঁকে সমর্থন জানিয়ে আবার উত্তরপ্রদেশের বিজেপির মুখপাত্র রাজেশ ত্রিপাঠী বলেন, “অযোধ্যায় রাম মন্দির চাক্ষুস করার অপেক্ষায় রয়েছেন রামভক্তরা।” পাশাপাশি তাঁর আশা, রাম মন্দিরের পক্ষেই রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট। তবে রাম বিলাসের মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেছে সর্বভারতীয় মুসলিম পারসোনাল ল বোর্ড এবং লখনউয়ের ইমাম খালিদ রশিদ ফিরাঙ্গি মেহলি। মেহলির বক্তব্য, “যে মামলাটি শীর্ষ আদালতের অধীনে রয়েছে, তা নিয়ে কোনও রাজনৈতিক দল বা ব্যক্তিবিশেষের মন্তব্য করা সাজে না। এ নিয়ে রায় দিতে পারে একমাত্র সুপ্রিম কোর্টই।”

রাম মন্দির স্থাপন মামলা এখনও সুপ্রিম কোর্টে ঝুলে রয়েছে। তা সত্ত্বেও রাম মন্দির নিয়ে একের পর এক মন্তব্য করে বিতর্ক তৈরি করে চলেছেন বিজেপি নেতা-মন্ত্রীরা। এর আগে মন্দির নিয়ে একাধিকবার বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন বিনয় কাটিয়ার। বিজেপি সাংসদ সাক্ষী মহারাজ, সাধ্বী প্রজ্ঞারাও বারবার সওয়াল করেছেন মন্দিরের পক্ষে। তাঁদের দাবি ভোটের আগেই মন্দির তৈরি করতে হবে। গত মাসে উত্তরপ্রদেশের উপ-মুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্যও এই তালিকায় নিজের নাম নথিভুক্ত করেন। বলেন, প্রয়োজনে সংসদে বিল এনে আইন তৈরি করা হবে। যদি লোকসভায় বিল পাশও হয়ে যায়, রাজ্যসভায় তা আটকে যাবে। কিন্তু যখনই রাজ্যসভায় শাসক গোষ্ঠীর শক্তি বাড়বে সরকার তার সদ্ব্যবহার করবে। একমাত্র রাম মন্দির স্থাপনের মাধ্যমেই প্রয়াত বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা অশোক সিংহল, রাম জন্মভূমি শিলান্যাস কমিটির প্রাক্তন চেয়ারম্যান মহন্ত শ্রী রামচন্দ্র দাস পরমহংস এবং করসেবকদের আত্মত্যাগের প্রতি সত্যিকারের শ্রদ্ধা জানানো হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

 

 

Related posts:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *