দাবি ২০১৮ সালে দিওয়ালির মধ্যেই অযোধ্যায় তৈরি হয়ে যাবে রামমন্দির,  সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। 

দাবি ২০১৮ সালে দিওয়ালির মধ্যেই অযোধ্যায় তৈরি হয়ে যাবে রামমন্দির,  সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। 

 

হিন্দু নিউজ :  ফের রামমন্দির নিয়ে মুখ খুললেন বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। বিতর্কিত এই স্থাপত্য নিয়ে বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ আর বছর খানেক সময় চেয়েছেন। তাঁর দাবি ২০১৮ সালে দিওয়ালির মধ্যেই অযোধ্যায় তৈরি হয়ে যাবে রামমন্দির।

রবিবার পাটনায় ‘বিরাট হিন্দুস্তান সঙ্গম’ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন স্বামী। সেখানেই তিনি দাবি করেন, আগামী দিওয়ালির মধ্যেই সম্পূর্ণ হয়ে যাবে রামমন্দিরের নির্মাণ। মানুষ সেখানে পুজো দিতে পারবেন। একই সঙ্গে নাম না করেও কংগ্রেসকে একহাত নিলেন তিনি। তাঁর বক্তব্য, রামমন্দির তৈরি করতে অনেকেই বাধা দিয়েছিলেন। তবে এতকিছুর পরও সমস্যার সমাধান মিলেছে। এখন রামমন্দির কেউ রুখতে পারবে না।

রামমন্দির নিয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এদিন মোদি সরকারের বিরুদ্ধে কিছুটা ক্ষোভ উগরে দেন স্বামী। প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, শুধু উন্নয়নে মানুষের মন জয় করা যাবে না। তাঁদের ধর্মীয় ভাবাবেগকেও মর্যাদা দিতে হবে। মানুষ হিন্দুত্ব চায়। এই কথা মনে রাখতে হবে। উন্নয়নে হিন্দুত্বের মিশেল না থাকলে নরসিমা রাও ও অটলবিহারী বাজপেয়ীর সরকারের মতোই এই সরকারকেও বাতিল করে দেবে জনতা।

স্বামী আরও বলেন, আর্থিক বৃদ্ধির দিকে নজর দেওয়া অত্যাবশ্যক ঠিকই কিন্তু ভোট জিততে তাই যথেষ্ট নয়। সে জন্য মর্যাদা দিতে হবে মানুষের ভাবাবেগকে। উন্নয়ন ও হিন্দুত্বের সমন্বয়েই ভোটে সাফল্য এনে দিতে পারে। এদিন রামমন্দির ছাড়াও জানকী মন্দির নির্মাণ করার ঘোষণাও করেন বিজেপি সাংসদ। বিহারের সীতামড়ি জেলায় এই মন্দির বানানো হবে বলে জানান তিনি। স্বামীর এই দাবি ঘিরে নতুন করে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। কারণ উত্তর প্রদেশে গত বিধানসভা ভোটে নির্বাচনী ইশতিহারে রামমন্দিরকে রেখেছিল গেরুয়া শিবির। তবে গো বলয়ের বৃহত্তম রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পরও রামমন্দির নিয়ে তেমন কিছু করতে পারেননি যোগী আদিত্যনাথ। এই প্রেক্ষিতে বিজেপির অন্দরে রামমন্দির তৈরির দাবি জোরাল হচ্ছিল। স্বামীর এই বক্তব্য সেই অংশকে শান্ত করার জন্য নাকি তাঁর নিশানা দল। এই প্রশ্ন ঘুরছে জাতীয় রাজনীতিতে।

 

Related posts:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *