পুরো ভারতবর্ষ জুড়ে হিন্দুদের উপর জংঙ্গি হামলার ছক কষছে বিশ্বের সব থেকে কুখ্যাত জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (ISIS)!

কুম্ভ মেলায় সন্ত্রাসবাদী হামলার ছক। অডিও ক্লিপের খোঁজ মিলতেই সতর্ক কেন্দ্র ও কেরল পুলিশ।

পুরো ভারতবর্ষ জুড়ে হিন্দুদের উপর জংঙ্গি হামলার ছক কষছে বিশ্বের সব থেকে কুখ্যাত জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (ISIS)!

ওয়েব ডেস্ক : দেশজুড়ে সন্ত্রাসবাদী হামলার ছক কষেছে বিশ্বের সব থেকে কুখ্যাত জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)। সংগঠনের ১০ মিনিটের অডিও টেপ থেকে জানা গিয়েছে, কেরলের ত্রিশূরপুরমের কুম্ভ মেলায় ‘লোন-উলফ’ হামলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে অনুগামীদের।

কিছু দিনে আগে ঠিক যে ভাবে উৎসবে মাতোয়ারা মানুষের উপরে লাস ভেগাসে হামলা চালানো হয়েছিল, সে ভাবেই ভারতে আক্রমণের ছক কষেছে আইএস। মালায়লম ভাষায় ১০ মিনিটের ওই অডিও ক্লিপ ইতিমধ্যেই কেরল পুলিশের হাতে এসেছে। জানা গিয়েছে, সেই ক্লিপে একটি পুরুষ গলায় কোরানের কয়েকটি হাদিসের উল্লেখও রয়েছে। এ নিয়ে প্রায় ৫০টি ক্লিপ উদ্ধার হল যেখানে ভারতে আক্রমণের ছক রয়েছে।

মার্কিন শহর লাস ভেগাসে একটি মিউজিক কনসার্টে সন্ত্রাসবাদী হামলার দায় স্বীকার করে আইএস। সেই হামলায় অনেক নিরাপরাধ সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়। এই অডিও ক্লিপে সেই আক্রমণের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। ২২ হাজার মানুষের সমাগমে বন্দুকবাজের হামলা চালিয়ে লাস ভেগাসে কমপক্ষে ৫৯ জনের মৃত্যু হয়। আহত পাঁচ শতাধিক।

এবার যে অডিও ক্লিপ পাওয়া গিয়েছে, তাতে বলা হয়েছে— ‘তোমাদের বুদ্ধি লাগাও। খাবারে বিষ মিশিয়ে দাও। ত্রিশূরপুরমে কুম্ভ মেলায় গাড়ি নিয়ে হামলা চালাও। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে আইএস মুজাহিদিনরা এই সব করছে। লাস ভেগাসে একটা মিউজিক কনসার্টে আমাদের একজন সমর্থক অনেক মানুষকে মেরেছে। কমপক্ষে একটা ট্রেন বেলাইন করে দাও।’

কেরল পুলিশের দাবি, আফগানিস্তানের কোনও জায়গা থেকে এই বার্তার ট্রান্সমিশন হয়েছে। মনে করা হচ্ছে, আইএস জঙ্গি রশিদ আবদুল্লা গলার স্বর। এর বিরুদ্ধে আগেই চার্জশিট পেশ করেছে এনআইএ। ইন্টারপোলও রেড নোটিশ জারি করেছে রশিদের বিরুদ্ধে। 

কিছু দিন আগে কেরল পুলিশ জানায়, তাদের কাছে এমন খবর রয়েছে যে, রাজ্যে শ’খানেক মানুষ জঙ্গি সংগঠন আইএস-এর সদস্য হয়েছে। এর পরেই এই অডিও বার্তা বেশি করে ভাবাচ্ছে। 

অডিও বার্তায় ধর্মীয় পাপের ভয়ও দেখানো হয়েছে। সেখান বলা হয়েছে, হামলা চালাতে না পারলে ধর্মাচারণের কোনও সুফল মিলবে না। ধর্মীয় পুণ্যলাভের জন্যও আইএসকে অর্থ সাহায্য করা উচিত।

পুরো ভারতবর্ষ জুড়ে হিন্দুদের উপর জংঙ্গি হামলার ছক কষছে বিশ্বের সব থেকে কুখ্যাত জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (ISIS)!
সম্প্রতি আইএস এর ১০ মিনিটের অডিও টেপ থেকে ভয়াবহ তথ্য জানা গেছে!!প্রধান টার্গেট থাকবে কুম্ভ মেলা,হিন্দুদের মন্দির,মঠ,ও হিন্দু জনার্কিন সমাবেশ!মালায়লম ভাষায় ১০ মিনিটের ওই অডিও ক্লিপ ইতিমধ্যেই ভারতীয়গোয়ান্দার হাতে এসেছে!সেই ক্লিপে একটি পুরুষ গলায় কোরানের কয়েকটি হাদিসের উল্লেখও রয়েছে।ওই অডিও ক্লিপ এ ভারতীয় মোল্লা অর্থ্যাত মোজাহিদদের বলা হয়েছে-‘তোমাদের বুদ্ধি লাগাও। খাবারে বিষ মিশিয়ে দাও। ত্রিশূরপুরমে কুম্ভ মেলায় গাড়ি নিয়ে হামলা চালাও। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে আইএস মুজাহিদিনরা এই সব করছে।ট্রেন এর লাইন কেটে হিন্দুদের মার,হিন্দুদের তীর্থ স্থানে হামলা কর,হিন্দু মহিলাদের মুসলিম কর!জংগিদের প্রধান টার্গেট থাকবে হিন্দুদের তথা পুরো বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফেসটিভেল কুম্ভ মেলা!!!
কুম্ভ মেলা উপলক্ষে বিশ্বের প্রতিটা জায়গা থেকে একত্রে ধর্মপ্রাণ হিন্দুরা তীর্থস্নান করতে আসেন।সাধারণ কুম্ভমেলা প্রতি চার বছর অন্তর আয়োজিত হয়। প্রতি ছয় বছর অন্তর হরিদ্বার ও প্রয়াগে (এলাহাবাদ) অর্ধকুম্ভ আয়োজিত হয়।প্রতি বারো বছর অন্তর প্রয়াগ, হরিদ্বার, উজ্জ্বয়িনী ও নাসিকে পূর্ণকুম্ভ আয়োজিত হয়। বারোটি পূর্ণকুম্ভ অর্থাৎ প্রতি ১৪৪ বছর অন্তর প্রয়াগে আয়োজিত হয় মহাকুম্ভবিশ্বের বৃহত্তম শান্তিপূর্ণ সমাবেশ হিসাবে ২০১৩ সালে এখানে ১০ কোটির বেশি হিন্দুর আগমন ঘটে।যা পৃথিবীর জন্য একটা বিস্ময় ও বটে!পৃথিবীতে এত জন সমুদ্র এবং শান্তি পূর্ন ভাবে সম্পন্ন হওয়ার দৃষ্টান্ত আর একটি ও নাই!প্রতি চার বছর অন্তর অন্তর এই মহাকুম্ভ মেলা অনুষ্টিত হয়!
২০০১ সালে সর্বশেষ মহাকুম্ভে যোগ দিয়েছিলেন প্রায় ১২ কোটি হিন্দু। এটিই ছিল বিশ্ব ইতিহাসের সবচেয়ে বৃহত্তম জনসমাবেশ।
সর্বশেষে একটা কথায় বলব-ভাই সাধু সন্নাসী হয়ে বসে থাকলে মোল্লারা সব কিছু ধবংশ করে দিবে!মোল্লা মাঠে নেমে পড়ছে হিন্দুদের অন্তিম সময় এসে পড়েছে বাচতে হলে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে রক্ষা করতে চাইলে মোল্লাদের বিরুদ্ধে আরেকটি কুরুক্ষেত্র চাই!!জাগো হিন্দু ভাত্রাগন পুরো হিন্দু ভাত্রত্ব এক হোক!

 

 

Related posts:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *