বাংলাদেশের হিন্দুদের মরেও শান্তি নেই! লাশ শ্মশানে সৎকার করতে গেলেও বাধা।

বাংলাদেশের হিন্দুদের মরেও শান্তি নেই! লাশ শ্মশানে সৎকার করতে গেলেও বাধা।

এইসব ভূমিদস্যুদের প্রতিহত করতে এবং উপযুক্ত ভাবে বসবাসের জন্য কঠিন আইন করা হোক

 

বাংলাদেশে কি হিন্দুদের বসবাস করতে দেওয়া হবে না?

 Hindus.news 
বাংলাদেশ ঠাকুরগাঁওয়ে শ্মশানে লাশ সৎকারে বাধা, প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২, আটক ১ |

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর গেদুরা ইউনিয়নের হাটপুকুর গ্রামে শ্মশানঘাটে লাশ সৎকারে বাধা দেওয়ায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার দুপুরে এ সংঘর্ষ ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ সৎকারে বাধা দেওয়ার অপরাধে আবুহুর নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে। আবুহুর হরিপুর উপজেলার হাটপুকুর গ্রামের মৃত আব্দুল মোতালেবের ছেলে।

হাটপুকুর শ্মশান ঘাটের সাধারণ সম্পাদক বিদেশী রায় জানান, হরিপুর উপজেলার গেদুরা ইউনিয়নের রাজাদীঘি গ্রামের বিলখা বর্মন রবিবার রাতে মারা যায়। পরিবারের লোকজন সোমবার দুপুরে তার লাশ সৎকারের জন্য হাটপুকুর শ্মশান ঘাটে নিয়ে যায়। এ সময় আবুহুর নামে এক ব্যক্তি ওই শ্মশানে লাশ সৎকারে বাধা দেয়।
এমনকি মৃতদেহ সৎকারের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করার পরও মৃতদেহটি নিয়ে টানাহেঁচড়া করে। এ সময় মৃতের লোকজন থানায় খবর দেয়। পরে মৃত্যের লোকজন পুলিশের উপস্থিতিতে লাশ সৎকারের কাজ শুরু করলে আবুহুর ও তার লোকজন আবারো সৎকারে বাধা দেয়। এতে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। সংঘর্ষে মৃত ব্যক্তির দুই ছেলে রমেশ, সমেশ গুরুতর আহত হয়। গত ২/৩ বছর থেকে এই ভূমিদস্যুরা হিন্দুদের উপর হামলাসহ বিভিন রকম হুমকি দিয়ে অধিকাংশ জমি গ্রাস করে ফেলেছে। হিন্দু বিভিন্ন সময় থানায় অভিযোগ করা সত্বেও কোন ব্যবস্থা নেননি প্রশাসন।

তবে কি বাংলাদেশ আবার সেই ইয়াহিয়া বুট্টুখানের শাসন চালু করে দিয়েছে ক্ষমতাধর শাসক ব্যাবস্থার মুসলিম রাস্ট ।মুখেই শুধু স্বাধীনতার রংঙ মাখানোর কবিতার ছড়া আর্বিত্তি হচ্ছে ।

 

আমাদের সাইটে যেকোনো হিন্দু নির্যাতন বা সমস্যার কথা তুলে ধরতে আমাদের ফেসবুক পেইজে পাঠাতে পারেন ।

ধন্যবাদ ,