বাবরি মসজিদের স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ নেই’ , ‘শীর্ষ আদালতের রায় যাবে অযোধ্যায় রাম মন্দিরের, 

বাবরি মসজিদের স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ নেই’ , ‘শীর্ষ আদালতের রায় যাবে অযোধ্যায় রাম মন্দিরের, 

 

রাম মন্দির ইস্যু নিয়ে অযোধ্যায় হিন্দু ও মুসলিমদের মধ্যে কোনও শত্রুতা নেই। এমনটাই বললেন রাম মন্দিরের পুরোহিত মোহান্ত সত্যেন্দ্র দাস। তিনি আরও বলেন, শীর্ষ আদালতের রায় যাবে রাম মন্দিরের দিকেই। কারণ স্পষ্ট প্রমাণ রয়েছে যে যেখানে বাবরি মসজিদ ছিল, সেখানেই একসময় মন্দির ছিল। তাঁর দাবি, খুব শীঘ্রই শীর্ষ আদালত রায় দেবে আর তার বছর খানেকের মধ্যেই তৈরি হবে রাম মন্দির।

এক সাক্ষাৎকারে মোহান্ত জানিয়েছেন, শীঘ্রই আদালতের রায় প্রকাশ্যে আসবে। হিন্দুদের তরফ থেকে সমস্ত প্রমাণ দাখিল করা হয়েছে যা থেক পরিষ্কার যে বাবরি মসজিদের আগেই অযোধ্যাতেই ছিল রাম মন্দির। তিনি আরও দাবি করেন, মুসলিমরা কোনও প্রমাণই দাখিল করতে পারেনি। কিছু নথি ইংরেজিতে অনুবাদ করার জন্য ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় চেয়েছেন তাঁরা। ফলে আগামী বছরের শুরুতেই রায় ঘোষণা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, যদি আদালতের রায় কোনও একটি পক্ষের দিকে না যায়, তাহলে হিন্দু ও মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ সামনা-সামনি বসে আলোচনা করে সমাধান করবে। আর তাতে কোনও রাজনৈতিক দল মাথা গলাতে পারবে না। মুসলিমদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়ানোয় বিশ্ব হিন্দু পরিষদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন তিনি। বলেন, ”বিশ্ব হিন্দু পরিষদ এমন ভাষা ব্যবহার করেছে যাতে মুসলিমরা হতাশ ও দুঃখিত। ‘ বিশ্ব হিন্দু পরিষদ যেসব স্লোগান ব্যবহার করেছে সেগুলি হল, ‘হিন্দি হিন্দু হিন্দুস্তান, মোল্লা ভাগো পাকিস্তান’, ‘যো কহেগা বাবরি, উসকো সমঝো আখরি’। এতে পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

সত্যেন্দ্র দাস নিজে ২৬ বছর মন্দিরের পুরোহিত ছিলেন। কিন্তু তিনি কখনও নিরাপত্তারক্ষী নেন না, কারণ মুসলিমদের নিয়ে কখনও ভয় পাননি তিনি। তাঁর কখনও মনে হয়নি যে দুই সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে কোনও শত্রুতা রয়েছে।

 

Related posts:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *