মেয়েদের নাচের ভিডিও ধারণে বাধা দেওয়ায়| প্রতিমা ভাঙচুর, আহত ৩।

মেয়েদের নাচের ভিডিও ধারণে বাধা দেওয়ায়| প্রতিমা ভাঙচুর, আহত ৩।

 

 

ঢাকা, 
কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলায় একটি সামান্য ঘটনাকে কেন্দ্র করে কালী পূজার মণ্ডপে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। সন্ত্রাসীরা বিপুল উদ্যমে দেশীয় অস্ত্রসহ হামলা করে পূজা মণ্ডপের দুইটি প্রতিমা ভাঙচুর করে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ২২ অক্টোবর রোববার দুপুর ১২টায় উক্ত উপজেলার পীরযাত্রাপুর গ্রামের বর্মন কালী পূজা মণ্ডপে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কুমিল্লা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন এবং বুড়িচং থানার ওসি মনোজ কুমার দে, ওসি (তদন্ত) নজরুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার মধ্যরাতে কালী পূজা মণ্ডপে আরতি চলাকালীন সময়ে মোবাইল ফোনে লুকিয়ে মেয়েদের নাচের ভিডিও ধারণ করার চেষ্টা করে মুসলমান সম্প্রদায়ের যুবক রবিউল ও তার সহযোগীরা। এ সময় স্বেচ্ছাসেবক তরুণদের চোখে পড়ে যায় ঘটনাটি। তারা ভিডিও ধারন করতে তাদেরকে বিনীতভাবে নিষেধ করেন। কিন্তু রবিউল ও তার সঙ্গীরা এই বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক তর্ক যুদ্ধ এবং ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটায়। তখন আয়োজকরা তাদেরকে বেরিয়ে যেতে বলে মণ্ডপ থেকে। রবিউল এবং তার সঙ্গীরা মণ্ডপ ত্যাগ করার সময় অশ্লীল ভাষায় উপস্থিত সকলকে উদ্দেশ্য করে গালাগাল করে। সেই সাথে ধর্মীয় বিদ্বেষমূলক কথা বলে। সবশেষে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়ে সেখান থেকে তাড়া খেয়ে পালিয়ে যায়।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিশোধ নেয়ার প্রবৃত্তিতে রবিউল ও তার সঙ্গীরা প্রস্তুতি নেয়। বাধা দেওয়ার ঘটনাটিকে কেন্দ্র পরদিন রোববার সকালে মণ্ডপের বাইরে অবস্থান নেয় রবিউল ও তার সঙ্গীরা। অপু বর্মন ও তার বন্ধুরা কাজের খাতিরে মণ্ডপের বাইরে যায়। সেখানে তাদেরকে রাস্তায় পেয়ে মারধর করে রবিউলের সহযোগীরা। এ সময় তিন জন আহত হয়।
ঘটনা এখানে থেমে যায়নি। অতঃপর দুপুর ১২টার দিকে রবিউলের নেতৃত্বে ৫-৭ জন মুসলমান সম্প্রদায়ের যুবক দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র, লোহার পাইপ, রড ও লাঠি নিয়ে ‘নারায় তাকবির, আল্লাহু আকবার’ বলে কালী মন্দিরে হামলা চালিয়ে দুটি প্রতিমা ভাঙচুর করে।
এব্যাপারে বুড়িচং থানার অফিসার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইনচার্জ মনোজ কুমার দে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি এবং এ ঘটনাস্থলে জড়িত থাকা সকলকে আইনের আওতায় আনার চেষ্টা চলছে।

 

Related posts:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *