স্বাধীনতার পর সবচেয়ে ‘বড় মিথ্যে’ হল ধর্মনিরপেক্ষ শব্দটি, মন্তব্য যোগীর,

স্বাধীনতার পর সবচেয়ে ‘বড় মিথ্যে’ হল ধর্মনিরপেক্ষ শব্দটি, মন্তব্য যোগীর,

 

বিশ্ব বাংলা, নিউজ প্রোট্রাল,

ভারতের সংবিধানের প্রস্তাবনায় রয়েছে ‘ধর্মনিরপেক্ষ’ শব্দটি। কিন্তু উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের দাবি, স্বাধীনতার পর সবচেয়ে ‘বড় মিথ্যে’ হল ধর্মনিরপেক্ষ শব্দটি। এই শব্দের ব্যবহারের জন্য যাঁরা মাতামাতি করেন তাঁদের ক্ষমা চাওয়া উচিত।

অযোধ্যায় আসন্ন পুরভোটের প্রচার করতে গিয়ে একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে যোগী বলেন, ‘‘হিন্দুত্ব কোনও ধর্ম কিংবা জাতপাতের বিষয় নয়। হিন্দুত্ব আসলে ভারতের প্রাণশক্তি।’’ আদিত্যনাথের দাবি, ‘‘হিন্দুত্ব ও উন্নয়ন সমার্থক শব্দ। হিন্দুত্ব বলতে ভারতীয়ত্বকেই বোঝায়। ফলে যাঁরা হিন্দুত্বের বিরোধিতা করেন, তাঁরা শুধু দেশের উন্নয়নেরই বিরোধী নন, তাঁরা দেশের প্রাণশক্তি নিয়েই প্রশ্ন তোলেন।’

ছত্তীসগঢ়ের রায়পুরে অনুষ্ঠানে যোগী বলেন, ‘‘আমার মতে, দেশের স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত সব থেকে বড় মিথ্যে শব্দটি হল ধর্মনিরপেক্ষতা। যাঁরা এই শব্দটি এত দিন ব্যবহার করেছেন, তাঁদের উচিত মানুষের কাছে ক্ষমা চাওয়া। কারণ, কোনও ব্যবস্থাই ধর্মনিরপেক্ষ হতে পারে না।’’

যোগী দাবি করেন, বিজেপি জাতপাত কিংবা ধর্মের ভিত্তিতে বিভেদের সৃষ্টি করে না। দেশকে একটি পরিবার হিসেবে দেখে। বিভিন্ন জনমুখী প্রকল্পের কথা টেনে মোদির শাসনকে রাম রাজ্যের সঙ্গে তুলনা করেছিলেন তিনি।কংগ্রেস নেতা কপিল সিব্বল পাল্টা তোপ দাগেন। যোগীকে নিশানা করে তাঁর মন্তব্য, ‘‘ মোদি সরকারকে রামরাজ্যের সঙ্গে তুলনা করেছেন আদিত্যনাথ। এটাই সব থেকে বড় মিথ্যা।’’

 

Related posts:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *