হালুয়াঘাটে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ১৩ বৎসরের কিশোরীকে অপহরণ,

হালুয়াঘাটে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ১৩ বৎসরের কিশোরীকে অপহরণ,

থানায় মামলা নিতে নানা গঠিমশি তালবাহানা,

 

Hindus.news

লেখাটি ডাঃ অরুন্ধতী

হালুয়াঘাটের বিলডোবা ইউনিয়নের কৈলাটি গ্রামের গোয়াতলা উচ্চবিদ্যালয়ের ১৩ বছরের এক সপ্তম শ্রেণীর শিক্ষাত্রীকে অপহরণের ঘটনায় হালুয়াঘাট থানায় মামলা বা অভিযোগ দায়ের করতে গিয়ে

জুনের ৩০ তারিখে আর্জেন্টিনা- ফ্রান্সের খেলা চলা কালিন সময়ে খেলা দেখছিলো স্ব-পরিবারের মানুষেরা চা খেতে খেতে খেলা দেখবে, এই বাসনায় মা ঘরের বাহিরে উঠানের চার থেকে পাচঁ হাত দূরে রান্নাঘরে চা বসিয়ে ঘরে আসেন। এবং ছবির কিশোরী যথা বসু মেয়েটিকে চা ‘টা নামিয়ে নিয়ে আসতে পাঠান।
মেয়েটির মা বয়স ১৩ বছর, ক্লাস সেভেনে পড়ে। ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাটে বাড়ি।
গ্রামের নাম কৈলাটি।

অনেকক্ষন পার হয়ে গেলেও চা কিংবা মেয়েটি বাহির থেকে ফিরে আসছে না তার মা-বাবা ডাকাডাকি করতে করতে রান্নাঘরে যায়। সেখানে এবং আশে পাশে কোথাও তাকে আর পাওয়া যাচ্ছে না

সারারাত সারাগ্রাম তোলপাড় করা হলেও , পরদিন থেকে হালুয়াঘার থানায় গিয়ে ধর্ণা দেওয়া শুরু করে ।থানার ভাষন গুলি ছিলো এরকম
(মেয়ে পালিয়ে গেছে কেন আপনারা বিরক্ত করছেন? আপনার মেয়ে প্রেমঘটিত কিছু ছিলো? এমনটা বিশ্বাস করবার কারন আছে বলে মনে হয় না? আরো যত পেচানো গোচানো কথা )

প্রতিবেশী একটি বাড়ীর লোকেরা সম্পত্তি দখলের জন্য দীর্ঘদিন ধরেই এই পরিবারটিকে খুনের হুমকি দিয়ে আসছিল।

ঘটনার রাত থেকে ওই হুমকিদাতা প্রতিবেশী বাড়ির পুরুষ সদস্যরাও বাড়ীতে নেই।

আবার জানতে পাওয়া যায় –উপজেলার কৈলাটি গ্রামের বিজন বসু (ডাক নাম বাচ্চু বসুর মেয়ে ১৩ বছরপর কন্যা গোয়াতলা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রী যথা বসুকে গত ৩০ জুন শনিবার সন্ধ্যায় একই গ্রামের( হিন্দু ডাকে পিসি ) আর মুসলমান ডাকে ফুফু) জয়ন্তী ভদ্র এর বাড়ি থেকে ফেরার পথে একই গ্রামের প্রতিবেশী আবু তাহের এর পুত্র রহাদ (২২) সহ অজ্ঞাত নাম না জানা৫থেকে ৬জন ব্যাক্তিরা অপহরন করে পালিয়ে যায়। অপহরনের তিন দিন পর

স্থানীয় থানায় মামলা নেন নি ভুক্তভোগীদের ৩ দিন। নানান তালবাহানা করে অভিযোগ পর্যন্ত লিপিবদ্ধ জমা নেয় নি।
ওই থানার ওসি একেক সময় একেক কথা বলে এদের নানা ভাবে ঘুরিয়ে সময় নস্ট করছিলো
স্থানীয় চেয়ারম্যান সালিশ বসানোর কথা বলে এবং ওই সন্দেহভাজন পরিবারের লোকদের ফোন করে “মেয়ে নিলে দিয়া দে বলে কালক্ষেপণ করে ৪ দিন পার হলে ও কোনো ফল আসেনি ।

পরিশেষে উপরমহল থেকে প্রবল চাপ দেয়ার ফলে রাত থেকে পুলিশী অ্যাকশন শুরু করে।

মেয়ের স্বজনদের কথা এবং মহানগর পুলিশ কে ইমর্ফম করুন।
এই মেয়েটিকে যদি কেউ কোথাও দেখেন, বা কেউ কোথাও নিয়ে যাচ্ছে বলে সন্দেহ হয়, অবিলম্বে চ্যালেঞ্জ করুন, লোকজন ডেকে আটকান ও নিকটস্থ থানায় খবর দিন। আর নীচে দেয়া নাম্বার গুলোতে ইনফরমেশন দিন।

“জীবিত” উদ্ধার করতে পারাই এখন মূল লক্ষ্য।

[যোগাযোগের নাম্বার: ★ 01823074183(ঢাকা মহানগর পুলিশ, এই মামলায় দায়িত্বপ্রাপ্তের নাম্বার)
01867208701,
01711071681. ]

(পোস্টটি যত সম্ভব শেয়ার করবার অনুরোধ রইল।)
লেখাটি ডাঃ অরুন্ধতী

আমাদের কাছে যেকোন তথ্য পাঠিয়ে দিন ইনবক্সে